Igloo hotel
Igloo hotel

Igloo hotel, ঠান্ডার সময়ে, পাহাড়ে গিয়ে বরফে মজা করতে কে না ভালবাসে! বরফের গোল্লা নিয়ে খেলা, স্কেটিং করা, স্লিপ খাওয়া– এ সবের মধ্যে যেন আলাদা রকমের অ্যাডভেঞ্চার আছে! অনেকে আবার সরাসরি বরফে না নামলেও, জানলার এ পার থেকে বরফ পড়া দেখতে ভালবাসেন। সেই সব মানুষদের কাছে উত্তর মেরুর ইগলু-গুলি যেন স্বপ্ন। অনেকেই ভাবেন, আহা, যদি অমন বরফের তাঁবুর মতো থাকা যেত!

এই বরফপ্রিয় মানুষদের জন্য সুখবর! আগামী বছরের এপ্রিল মাসে খুলে দেওয়া হচ্ছে উত্তর মেরুর ইগলু হোটেল!

Igloo hotel

ফিনল্যান্ডের একটি বিলাসবহুল পর্যটন সংস্থা, ‘লাক্সারি অ্যাকশন’ উত্তর মেরুতে ইগলু হোটেলগুলি তৈরি করেছে। তবে এগুলি কেবল বছরের একটি মাস, এপ্রিলেই খোলা থাকবে। ইগলুর মতো ছোট ছোট এই হোটেলগুলির দেওয়াল ও ছাদ তৈরি হয়েছে কাচ দিয়ে। সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা, সিইও জেন হনকেনেন জানিয়েছেন, যাঁরা পরিবেশ ভালবাসেন তাঁদের জন্য এই হোটেল। তাঁর দাবি এই হোটেলের ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই প্রচুর মানুষ সুমেরু সম্পর্কে আরও বেশি করে জানতে চাইছেন। সেখানে যেতে আগ্রহ দেখাচ্ছেন। এটা একটা দুর্দান্ত অভিজ্ঞতা হবে বলে দাবি করেছেন তিনি।

শুধু থাকাই নয়। সুমেরু প্রদেশে যে সব বিজ্ঞানীরা রয়েছেন, কেউ চাইলে তাঁদের সঙ্গেও কথা বলতে পারবেন। উত্তর পাবেন বহু জিজ্ঞাসার। সিল মাছ, মেরু ভাল্লুক, উত্তর মেরুর বিভিন্ন পাখি-সহ নানা রকমের মের- প্রাণীদের সঙ্গেও দেখা হয়ে যেতে পারে। জানা গেছে, পর্যটকদের জন্য আপাতত মোট ১০টি কাঁচের ইগলু তৈরি করা হয়েছে। সেগুলোতে বসে সুমেরুর রাতের আকাশও দেখতে পাবেন তাঁরা।

Igloo hotel

সাধারণ মধ্যবিত্তদের জন্য যে এমন ইগলু-ভ্রমণ সম্ভব হবে না চট করে, তা বলাই যায়। পাঁচ রাত এই ইগলুগুলিতে থাকার জন্য খরচ পড়বে ১ লক্ষ মার্কিন ডলার বা ভারতীয় মুদ্রায় ৭১ লক্ষ ৩ হাজার টাকা। তবে এটি কেবল একটি বিলাসবহুল পর্যটন নয়, এটি আদতে  উত্তর মেরু অভিযানের মতো।

লাক্সারি অ্যাকশন জানিয়েছে, তাঁরা আসলে অন্য এক ধরনের অভিযানেরই ব্যবস্থা করেছেন। শুধুমাত্র থাকতে আসার জন্য মানুষকে আমন্ত্রণ জানাচ্ছেন না তাঁরা। তবে সে যেমন হোক, আর যা-ই হোক। পাঁচ-পাঁচটা দিন উত্তর মেরুর ইগলুতে থেকে আসার কথা ভেবে এখন থেকেই উত্তেজিত বহু পর্যটক। খুব তাড়াতাড়িই বুকিং করার জন্য ব্যবস্থা চালু হয়ে যাবে বলেও জানিয়েছে ওই সংস্থা।

 693 total views,  1 views today